বরিশাল-১ আসনে মনোনয়ন পেতে শেষ মুর্হূতেও দৌড়ঝাঁপ

বরিশাল-১ আসনে মনোনয়ন পেতে শেষ মুর্হূতেও দৌড়ঝাঁপ

বরিশাল ১ ও ২ সংসদীয় আসন দুটিতে প্রচার-প্রচারণায় মাঠে রয়েছে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ বিভিন্ন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা। কেন্দ্র এবং দলের দৃষ্টি আকর্ষণে শেষ মুর্হূতেও দৌড়ঝাঁপ করছেন তারা।

বরিশাল-১ আসনটি গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া নিয়ে গঠিত। এ আসনের ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ৫৭ হাজার ২২০ জন। এদিকে বরিশাল-২ আসনটি উজিরপুর ও বানারীপাড়া উপজেলা নিয়ে গঠিত। এ আসনে ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১ হাজার ৩৯৭ জন। নির্বাচন সামনে রেখে আসন দুটিতেই তৎপর বিভিন্ন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

বরিশাল-১ আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন বর্তমান সংসদ সদস্য এবং বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ। এর আগেও তিনি এ আসন থেকে একাধিকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। যে কারণে এ আসনে তার কোনও বিকল্প নেই।

বরিশাল-১ এর পৌর মেয়র মো. হারিসুর রহমান বলেন, তিনি ব্যতীত আমাদের অন্য কোনও প্রার্থী নাই, তিনি শুধু গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া নয় সমস্ত দক্ষিণাঞ্চলের আওয়ামী পরিবারের সদস্য। আগামী জাতীয় নির্বাচনে তিনিই একমাত্র প্রার্থী এ ব্যাপারে আমাদের আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে।

অন্যদিকে ২০০১ সালের নির্বাচনে আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহকে হারিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপির সংস্কারপন্থী নেতা জহিরউদ্দিন স্বপন। আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার মাধ্যমে আবারও দলে ফিরতে চান তিনি। এছাড়াও, বিএনপির পক্ষে মাঠে আছেন আরও কয়েকজন সম্ভাব্য প্রার্থী।

বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আকন কুদ্দুসুর রহমান বলেন, যদি নির্বাচনে লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড না থাকে, যদি একতরফা নির্বাচন হয়, যদি বিরোধী দলকে নির্বাচনে আসতে না দেয়া হয়, তবে সে নির্বাচনে কোনও দিনও জনগণের মতামতের প্রতিফলন ঘটবে না।

এদিকে, বরিশালের ২ নম্বর সংসদীয় আসনটি গত দশ বছর ধরে আওয়ামী লীগের দখলে আছে, এবারও তার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে চায় দলটি। এবার এ আসন থেকে নৌকার টিকিট চাইছেন বর্তমান এমপি তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুছ ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শাহে আলমসহ আটজন সম্ভাব্য প্রার্থী।

বরিশাল-২ এর সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুছ বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে ধরনের একজন সংসদ চান, সেটা আমি সততার সঙ্গে পালন করতে পেরেছি। আমার আশা প্রধানমন্ত্রী আমকেই মনোনয়ন দিবেন।

ছাত্রলীগ সাবেক সভাপতি মো. শাহে আলম তালুকদার বলেন, আমি তৃণমূলের সবার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি, আমার দলের ও সাধারণ মানুষের সমর্থন আমি পাচ্ছি।

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেও এ আসনে বেশ সুসংহত বিএনপি। আগামী নির্বাচনে আসনটি থেকে সাবেক হুইপ শহিদুল হক জামাল এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য সরফুদ্দিন আহম্মেদ সান্টুর নাম সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছে বলে গুঞ্জন আছে। তবে দলের মনোনয়ন চাইলেও তাদের দু’জনের কাউকেই এখনও পর্যন্ত আগাম নির্বাচনী প্রচারণায় দেখা যায়নি।

Leave a Comment