সিলেটের মেয়র আরিফসহ তিন বিএনপি নেতার পদত্যাগ

সিলেটের মেয়র আরিফসহ তিন বিএনপি নেতার পদত্যাগ

দীর্ঘ ১৯ বছর পর জাতীয়তাবাদী যুবদল সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সিলেটের মেয়র আরিফসহ তিন বিএনপি নেতা পদত্যাগ করেছেন।

কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহসভাপতি সিদ্দিকুর রহমান পাপলুকে আহ্বায়ক, জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক মকসুদ আহমদ সদস্য সচিব করে জেলা কমিটি এবং সাবেক ছাত্রনেতা নজিবুর রহমান নজিবকে আহ্বায়ক ও শাহ নেওয়াজ বকত তারেককে সদস্য সচিব করে মহানগর যুবদলের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে যুবদলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু এ কমিটির অনুমোদন দেন। কমিটি ঘোষণার পর একপক্ষ আনন্দ মিছিল করলেও আরেক পক্ষ ফুঁসছেন ক্ষোভে। সিলেট জেলা যুবদলের কমিটি নিয়ে ইতোমধ্য বিএনপির কেন্দ্রীয় পদ থেকে পদত্যাগ করার ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ ক্ষুদ্র ঋণ বিষয়ক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, সদস্য সিলেট সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী।

এ নিয়ে শুক্রবার রাতে নগরীর কুমারপাড়া এলাকায় সভা করেছেন বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। এ সভায় বিএনপির নেতৃবৃন্দ ও যুবদলের অবমূল্যায়িত নেতাকর্মীরা দল থেকে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিলে তাদেরকে থামিয়ে দেন কেন্দ্রীয় নেতারা। এক পর্যায়ে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী সিদ্ধান্ত নেন তারা নিজেরাই দলের কেন্দ্রীয় পদ থেকে পদত্যাগ করবেন। এমন কি আজ তারা দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের কাছে পদত্যাগপত্র পাঠাবেন।

পরবর্তীতে তাদের সাথে থাকা বিএনপি ও অন্যান্য অঙ্গ সংগঠনের নেতারাও গণপদত্যাগ করবেন বলে সভায় সিদ্ধান্ত হয়।

এ ব্যাপারে সভায় উপস্থিত থাকা সিলেট জেলা যুবদলের সদ্য সাবেক কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, শুক্রবার সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের যে কমিটি গঠন করা হয়েছে, এতে দীর্ঘদিন ধরে যুবদলের রাজনীতি করা কেউ ঠাঁই পাননি। ঠাঁই পেয়েছেন বিশেষ একজন কেন্দ্রীয় নেতার অনুসারীরা। তাই বিষয়টি নিয়ে তারা রাতেই সিলেটে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে তুলে ধরেন। এর প্রেক্ষিতে বিএনপির তিন কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রাজ্জাক, আরিফুল হক চৌধুরী ও ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী দলের পদ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নেন।তিনি আরো বলেন, অতীতে সিলেটে বিএনপির যেকোনো অঙ্গসংগঠনের কমিটি করা হলে স্থানীয় নেতাদের সাথে আলোচনা করে করা হতো। কিন্তু এবারের কমিটির ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম এ হক, তাহসিনা রুশদী লুনাসহ কারো সাথে যোগাযোগ করা হয়নি।

এ বিষয়ে সদ্যগঠিত সিলেট জেলা যুবদলের আহ্বায়ক সিদ্দিকুর রহমান পাপলু আরটিভি অনলাইনকে বলেন, অতীতে জাতীয় নির্বাচনের সময় সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী তাদের পছন্দের প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় বিএনপি থেকে পদত্যাগের হুমকি দিয়েছিলেন। কিন্তু তখন তিনি পদত্যাগ করেননি। তাছাড়া তাদের পদত্যাগের বিষয়ে আমরা চিন্তিত নই। কারণ এই তিন নেতা যুবদলের কিছু না। এমনকি তারা যুবদলকে নিয়ন্ত্রণও করেন না। আর যুবদল কোনো কেন্দ্রীয় নেতার আশীর্বাদে আসেনি। যুবদল নিয়ম অনুযায়ী গঠন করা হয়েছে। এমনকি সিলেট জেলা বিএনপি, সিলেট মহানগর বিএনপি, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এমএ হক, তাহসিনা রুশদী লুনাসহ আমাদেরকে স্বাগতম জানিয়েছেন।

যুবদলের নতুন কমিটিকে স্বাগত জানানোর কথা নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন।

Leave a Comment